Inception

2010 ‧ Sci-Fi/Action/Thriller‧ 2h 28m

•RATINGS
IMDb: 8.5/10
Rotten Tomatoes: 89%
Personal Rating: 9.5/10

ক্রিস্টোফার নোলানের মুভি মানেই ভিন্ন ধরনের কিছু থাকবেই। এই পর্যন্ত তার যতগুলো মুভি দেখলাম সবগুলোতেই একটা চমক ছিলোই ছিলো। তেমনি ব্যতিক্রম রইলো না ‘Inception’ মুভিটিতেও। Dark Knight Trilogy, Memento, The Prestige এর পর এটা আমার দেখা নোলানের ৬ষ্ট মুভি।

মুভিতে লিড রোলে অভিনয় করেছেন লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও। নোলানের মুভি + লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওর অভিনয় পুরোই আগুন। মুভি বাংলা সাবটাইটেল দিয়ে দেখেছি। মুভির শুরুতেই সাবটাইটেলে মুভির মেইন কি-ওয়ার্ডগুলো এক্সপ্লেন করে দেওয়া হয় বিধায় বুঝতে কোন অসুবিধা হয়নি। মুভির এন্ডিংটাও খুব ভালো লেগেছে। টোটেম/স্পিনারটা ঘুরতে ঘুরতে পড়ে যাওয়ার সাউন্ড টা।

মুভিতে কোব (লিও) একজন লুসিড ড্রিমার/এক্সট্রাকটর। লুসিড ড্রিমার হলো তারা, যারা ঘুমানো অবস্থায় তাদের স্বপ্নকে এবং স্বপ্নের সমস্ত বিষয়বস্তুকে নিয়ন্ত্রন করতে পারেন। লুসিড ড্রিমাররা অন্য কারোর স্বপ্নে গিয়ে তাদের ব্যাক্তিগত তথ্য বা আইডিয়া চুরি করেও ফেলতে পারেন। এ কাজটা বলতে সহজ হলেও, করা অনেকগুন কঠিন। এর জন্য প্রথমে তাদের অন্যের স্বপ্নে গিয়ে আইডিয়া ইমপ্ল্যান্ট করতে হয়। অন্য কারোর তথ্য বা আইডিয়া চুরি করতে তাদের কয়েকটা স্তরও পার করতে হয়। এগুলো হলো স্বপ্নের স্তর। ১ম বা ২য় ধাপের স্বপ্নে আইডিয়া বা তথ্য চুরি করা গেলেও অন্যের মাথায় আইডিয়া বপন করতে হলে যেতে হবে ৩য় স্তরে যেটা সবচেয়ে সাংঘাতিক স্তর। স্বপ্নে এই আইডিয়া ইম্পল্যান্টের নামই হচ্ছে Inception!

মূল কাহিনী:
কোব (লিও) তার স্ত্রীকে হত্যার দায়ে অভিযুক্ত একজন এক্সট্রাকটর/লুসিড ড্রিমার। সাইতো নামের এক ব্যবসায়ী কোবকে প্রস্তাব দেন যে তিনি যদি তার প্রতিদ্বন্দ্বী মরিশ ফিশালের পুত্র রবার্ট ফিশালের স্বপ্নে ঢুকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য চুরি করে আনতে পারেন, তবে বিনিময় হিসেবে কোবের পুরো টিমের জন্য বিশাল অংকের টাকা এবং কোবের ক্রিমিনাল রেকর্ড মুছে দিয়ে তার জন্য আমেরিকায় প্রবেশের সুযোগ করে দিবেন। তিন স্তরের স্বপ্নের মাধ্যমে কোব কি পারবে সেই ব্যাবসায়ীর ছেলের মাথায় আইডিয়া ইমপ্ল্যান্ট করতে এবং সেই তথ্য চুরি করে আনতে? জানতে দেখে ফেলুন নোলানের এই অসাধারণ মুভিটি

“𝗬𝗼𝘂𝗿 𝗺𝗶𝗻𝗱 𝗶𝘀 𝘁𝗵𝗲 𝘀𝗰𝗲𝗻𝗲 𝗼𝗳 𝘁𝗵𝗲 𝗰𝗿𝗶𝗺𝗲”