Arjun Reddy VS Kabir Singh

 

২০১৭ সালে ৩ ঘন্টার একটা মুভি পাই। নামটাও অদ্ভুত। অর্জুন রেড্ডি। এত লম্বা মুভি দেখবো? সামনে একট পরীক্ষাও চলে এসছিলো। বিভিন্ন গ্রুপে এর রিভিউ পড়ে দেখতে বসেই গেলাম। এরপরে আর কিছু খেয়াল ছিলো না মুভি বাদ দিয়ে। ৩ ঘন্টা উড়ে গেল চোখের পলকে! একটু ভিন্ন ধাঁচের মেকিং কিংবা স্টোরি টেলিং পুরা মুভিটা ৩-৪ বার দেখতে বাধ্য করলো!

সিম্পল কাহিনী। বদ মেজাজি ডাক্তার। অসম্ভব মেধাবী আর সুদর্শন। মেজাজের কারনে কুখ্যাত, মেধা দিয়ে পার পেয়ে যায় অনেক কিছুতেই। শেষমেশ টুপ করে প্রেমে পড়ে যায় সাদামাটা একটা মেয়ের। প্রথম দেখাতেই। এরপরে উদ্দাম প্রেম। বছর খানেকের মাঝেই পারিবারিক ইগোর কারনে বিচ্ছেদ। অনেক কিছুর পরে আবারো ফিরে আসা। কাহিনী এটুকুই।

বক্স অফিসে ঝড় তুলেছিলো মুভিটি। পজিটিভ রিভিউও অনেক। রিমেক হলো বলিউডে। যথারীতি এখানেও ব্লক ব্লাস্টার।

অরিজিনাল মুভির নায়ক বিজয়। বলিউড রিমেকে শহীদ কাপুর।

দুজনে দুজনের জায়গায় জাস্ট ফাটিয়ে দিয়েছে। বিজয়ের মধ্যে রাফ এন্ড টাফ এটিচুডের পাশাপাশি একটা লেডি কিলার ভাব ছিলো। তার শারীরিক গঠন তার কিছু এক্সপ্রেশন কে চরম মাত্রায় ফুটিয়ে তুলতে সাহায্য করেছিলো। এরকম এটিচুড, মেধা ও পুরুষালি সৌষ্ঠব থাকলে অনেক মেয়েই দুর্বল হতেই পারেন।

ওইদিকে অসাধারণ এক্টিং স্কিলের শহীদ কাপুর তার সেরাটা দিয়েছেন রিমেক ভার্সনে। তবে তার মধ্যে লেডি কিলার ভাবের চেয়েও প্রকট ছিলো ‘এংরি ইয়াং বয়’ এটিচুডের। বিজয়ের লম্বা চওড়া শারীরিক গঠন নিঃসন্দেহে শহীদের চেয়ে তাকে এগিয়ে রাখবে।

দুজনের পারফরমেন্স কিছুটা হলেও ব্যাতিক্রম, এবং দুইটায় দুই রকম ফ্লেভার। যার যার ক্ষেত্রে অনবদ্য।

নায়িকা হিসেবে দুই ভার্সনেই নায়কের ফোকাসের কাছে ম্লান হয়ে গেছেন দুইজন নায়িকাই। সৌন্দর্য বিবেচনায় কিয়ারা এগিয়ে ছিলেন।

অরিজিনাল ভার্সন কিছুটা অপ্রয়োজনীয় দৃশ্য ছিলো। কাঁটছাট করে বলিউড রিমেকে সে মেদ টুকু ঝেড়ে ফেলা হয়েছে। এবং অবশ্যই ভালো দিক। গানের দিকে রিমেক এগিয়ে মূলটার চেয়ে হাজার গুণ।

মুভি দুইটার ব্যাপারে অনেকেই পজিটিভ অনেকেই নেগেটিভ ধ্যান ধারনা পোষণ করছেন। বাস্তবে কি এতো রাফ প্রেম হয়? হতে পারে, নাও হতে পারে। মেধার সাথে এমন boldness থাকতেই পারে। বেপরোয়া বুনো হিরো। সেক্স-কিস ইত্যাদি নিয়ে অনেকের আপত্তি। হতেই পারে। সবার দৃষ্টিভঙ্গি এক নয়।

দুইটা মুভিই উপভোগ করেছি। বিভিন্ন দৃশ্য সমান্তরালে চালিয়ে দেখেছি। কোনটাই খারাপ লাগেনি।

প্রিয় মুভি এই অর্জুন রেড্ডি কিংবা কবির সিং।